সোমবার, ১১ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৫শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সুরমা ইউনিয়নে নির্বাচনী হাওয়া : নৌকা চান তাজুল ইসলাম

নিজস্ব প্রতিবেদক::  

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার পশ্চাৎপদ একটি জনপদ সুরমা ইউনিয়ন। ইউনিয়ন প্রতিষ্ঠার পর থেকে আজোবধি ইউনিয়ন পরিষদের নেই কোনো নিজস্ব ভবন, উপস্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ভূমি অফিস কিংবা পোস্ট অফিস। যেকারণে ইউনিয়নের পরিষদের কার্যক্রম থাকা স্বত্ত্বেও কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সুরমা ইউনিয়নবাসী। ইউনিয়নের আপামর জনগণের কাঙ্ক্ষিত উন্নয়নে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সুরমা ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের মনোয়ন প্রত্যাশী সাবেক ছাত্রলীগ নেতা তাজুল ইসলাম। তিনি একই ইউনিয়নের টেংরাটিলা গ্রামের বাসিন্দা আওয়ামীলীগ নেতা মরহুম ফজলুল হকের সন্তান। সিলেটের এমসি কলেজ থেকে সমাজবিজ্ঞানে অনার্স ও মাস্টার্স সম্পন্ন করেছেন তাজুল ইসলাম। তার বাবা মরহুম ফজলুল হক ছিলেন মহান মুক্তিযুদ্ধের একজন সংগঠক এবং মুক্তিযুদ্ধকালীন স্বাধীন বাংলা সংগ্রাম পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন। এছাড়াও তিনি সিলেট জেলা জুরি বোর্ডের সদস্য ও টেংরা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন।

তাজুল ইসলামের সমর্থকরা জানান, তাজুল ইসলাম একজন রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান। মুক্তিযুদ্ধ এবং আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে তার পরিবারের অবদান রয়েছে। তার এক চাচা মরহুম আব্দুস সালাম এবং ভাই মরহুম আব্দুল মতিন দীর্ঘদিন জনপ্রতিনিধি ছিলেন। এছাড়াও তার পরিবারের সবাই আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে সক্রিয়। তাজুল ইসলাম ছাত্র জীবনে সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ এবং এমসি কলেজ ছাত্রলীগের রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন। দীর্ঘদিন তিনি বৃহত্তর লক্ষীপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। বর্তমানে একজন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী তাজুল ইসলাম। ব্যবসার পাশাপাশি এলাকার শিক্ষা, আর্থসামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে তার সম্পৃক্ততা রয়েছে। ১৯৯৪ সাল থেকে এখনোব্দি তিনি আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে জড়িত আছেন। বর্তমানে তিনি বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদের সভাপতি এবং সুরমা ক্লাবের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও নৌকার মনোয়ন প্রত্যাশী ছিলেন তাজুল ইসলাম। আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ইউনিয়নের প্রতিটি এলাকায় এলাকায় আগাম গণসংযোগ করে বেড়াচ্ছেন তিনি। পারিবারিক ঐতিহ্য ও স্বচ্ছ ব্যক্তি ইমেজের কারণে এলাকায় নিজস্ব ভোট ব্যাংক রয়েছে তার। নিজের প্রার্থীতা জানান দিতে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ধরনা দিচ্ছেন তিনি।

তাজুল ইসলাম জানান, আমি আওয়ামীলীগ ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান হিসেবে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী হতে মাঠ পর্যায়ে কাজ করে যাচ্ছি। তৃণমূল পর্যায়ে জনসম্পৃক্ততা বাড়িয়েছি। আমি আশাবাদী দলের নীতিনির্ধারণী ফোরাম আমাকে মনোয়ন দেবে। নৌকা প্রতীকে মনোয়ন পেলে আমি বিপুল ভোটে বিজয়ী হবো ইনশাআল্লাহ। আমি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে প্রথমেই আমার ইউনিয়ন পরিষদের নিজস্ব কার্যালয় করার বিষয়ে গুরুত্ব দেব। পাশাপাশি ইউনিয়নের উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র, ইউনিয়ন ভূমি অফিস, পোস্ট অফিস নির্মাণসহ সামাজিক সুরক্ষা খাত, সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা তথা অবকাঠামোগত উন্নয়ন, গ্রাম্য আদালত ব্যবস্থা সক্রিয়করণসহ সার্বিক উন্নয়নে কাজ করব। দলমত নির্বিশেষে সবাইকে নিয়ে ইউনিয়নবাসীর কাঙ্ক্ষিত উন্নয়নে কাজ করব। আমি সবার দোয়া ও সার্বিক সহযোগিতা প্রত্যাশা করছি।

সুনামগঞ্জ২৪.কম/এআর/ এসএইচএস