সোমবার, ২৯শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জুলাই, ২০২০ ইং

সাড়া ফেলেছে দিপংকরের “ও যমুনা আর কেঁদোনা’

খবরটি শেয়ার করুন:

নিজস্ব প্রতিবেদক(রঙ্গমঞ্চ)::
সঙ্গীতের সঙ্গে জড়িয়ে যাওয়া ছিলো জীবনের শুরেু থেকেই। শৈশব থেকেই ছিলো গানের অনুরাগ। বাড়তে থাকা বয়সের গন্ডি শিশু থেকে যুবকে। জীবিকার সন্ধান আর ব্যস্ততার জঞ্জালে হারিয়ে যেতে যেতে দুরত্ব বাড়তে থাকে সঙ্গীতের। বাবা দিজেন্দ্র লাল রায়ের আকস্মিক মৃত্যুর পর সঙ্গীত থেকে ছিটকে পরা। তবে গানের প্রতি আসক্তি বা নেশা কমেনি একটুও।

তাই আবার ফিরে আসার তাগিদ থেকে ২০১৬ সালের কোন এক আনুষ্ঠানিকতায় মঞ্চ মাতিয়েছিলেন দিপংকর। সম্প্রতি তার কণ্ঠে “ও যমুনা আর কেঁদোনা” গানটি সাড়া ফেলেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে শুরু করে সুনামগঞ্জের সংস্কৃতিমনাদের মাঝে।

✅ আপনাদের ভালোবাসায়

আচমকাই তার এমন সৃষ্টিশীলতায় কুড়িয়েছেন সব বয়সি শ্রোতাদের সাধুবাদ। দেশের জনপ্রিয় সঙ্গীত ব্যক্তিত্ব ও সঙ্গীত পরিচালক রাজীব হোসেনের সঙ্গীতায়োজনে ও প্রখ্যাত গীতিকার সানোয়ার হোসেনের কথায় গানটি কণ্ঠে তোলেছেন তরুণ শিল্পী দিপংকর।
সঙ্গীত নির্ভর প্রতিষ্ঠান ‘কালো- সাদা এন্টারটেইনমেন্ট ’ তাদের নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেল থেকে

গত ১৭জানুয়ারি গানটি আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করেছে। ইতিমধ্যেই গানটির লিংক ছড়িয়ে পরেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের অসংখ্য ব্যবহারকারির নিজস্ব টাইমলাইনে। চলছে নানা আলোচনা।

গানটিতে মানুষের জীবনের প্রচলিত ঘটনাগুলোর সঙ্গে রুপক অর্থে নদীর বয়ে চলাকে তুলনা করেছেন গীতিকার। গানটির সুর করেছেন দিপংকর নিজেই। এই সৃষ্টিকর্ম সম্পর্কে দিপংকর রায় সুনামগঞ্জ২৪.কম এর রঙ্গমঞ্চ প্রতিবেদককে বলেন‘ গান থেকে সরে গিয়েছিলাম বাবার মৃত্যুর পর, শুরু থেকেই পারিবারিকভাবে গানের সঙ্গে আমার সখ্যতা গড়ে উঠে, গানটির জন্য বিশেষ করে আমি এর শ্রদ্ধেয় গীতিকার সানোয়ার ভাইকে কৃতজ্ঞতা জানাই, প্রখ্যাত সঙ্গীত তারকা শ্রদ্ধেয় রাজীব হোসেন ভাইর

কাছে আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি, যারা এই গানটিতে নানাভাবে নিজ নিজ জায়গা থেকে শ্রম দিয়েছেন তাদের সকলের কাছে আমি ঋণী, আমি সকলের ভালোবাসায় সিক্ত, আরও ভালো কিছু করার প্রত্যাশা করি, তাই ভালোবাসা চাই সকলের’।

“ও যমুনা আর কেঁদোনা” গানটি শুনতে চাইলে ভিজিট করতে পারেন এই লিংকে: https://youtu.be/QyHjoK4N9ps

 

সুনামগঞ্জ২৪.কম/ এমএআই

খবরটি শেয়ার করুন:

✅ বিজ্ঞাপন

✅ বিজ্ঞাপন

✅ বিজ্ঞাপন