বুধবার, ১ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ অক্টোবর ২০১৯ ইং

দূর্গা পূজাকে ঘিরে পুলিশের তিন স্তরের নিরাপত্তা জোরদার

নিউজটি শেয়ার করুন

মনোয়ার চৌধুরী::

হিন্দু ধর্মাবলম্বিদের সবচেয়ে আরম্বরপূর্ন ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গা পূজাকে কেন্দ্র করে জেলার ১২টি থানার আওতাধীন এলাকায় ৩ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছে পুলিশ। সুনামগঞ্জ জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার পক্ষ থেকে সুনামগঞ্জ২৪.কম কে এই তথ্য জানানো হয়েছে। এবছর জেলায় সর্বমোট ৪০৯টি মন্ডপে দূর্গা পূজার আয়োজন করা হয়েছে। এরমধ্যে জেলা সদরে ৪৫টি মন্ডপে উদযাপন করাহবে এ পূজা। এছাড়াও জেলার বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় ২৯টি, জগন্নাথপুর উপজেলায় ৪০টি, ছাতক উপজেলায় ৩৬টি, দেয়ারাবাজারে ১৭টি, দক্ষিণ সুনামগঞ্জে ২২টি, জামালগঞ্জে ৪৭টি, শাল্লায় ৩৩টি, তাহিরপুরে ২৯টি, ধর্মপাশায় ১৮টি, দিরাইয়ে ৬৪টি ও মধ্যনগরে ২৯টি পুজা মন্ডপে একযোগে এই পূজার আয়োজন সাজিয়েছেন সনাতন ধর্মাবলম্বিরা।

এই উৎসবে নাগরিক নিরপত্তার বিষয়টি জোর দিয়ে জেলা পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমানের নির্দেশনায় ও পুলিশের সকল দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ি নিয়মিত দায়িত্বপালনরত পুলিশ সদস্যদের পাশাপাশি অতিরিক্ত আরও ১হাজার ১৩৫জন পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

এরমধ্যে ২৮সেপ্টেম্বর থেকে ৩অক্টোবর অব্দি সময়ে জেলার বিভিন্ন এলাকার মন্ডপগুলোর নিরাপত্তায় দায়িত্ব পালন করেছেন অতিরিক্ত ৩৫৪জন পুলিশ সদস্য। এছাড়া ৪ অক্টোবর থেকে ৮অক্টোবর অব্দি সারা জেলায় মোবাইল টহল টিমে থাকবে ৩০৫জন পুলিশ সদস্য। মন্ডপের নিরাপত্তায় থাকবে ২৪৩জন এবং বিসর্জনকে কেন্দ্র করে সকল বিভাগের পুলিশ সদস্যর পাশাপাশি আলাদাভাবে নজরদারিতে থাকবেন ৭৩জন পুলিশ সদস্য।
এর বাইরেও এই পূজায় সারা জেলায় সকল মন্ডপের নজরদারিতে রয়েছেন গোয়েন্দা সদস্যরা।

এই উৎসবকে আরও রঙিন করে তোলার প্রচেষ্টায় জেলা শহরের নতুনপাড়া এলাকায় মন্ডপগুলোকে সাজিয়ে তোলা হয়েছে নানা রঙের আলোতে। জেলা সদরে এই এলাকায় সবচেয়ে বেশি সংখ্যক দর্শনার্থীর সমাগম হওয়ায় আইন শৃংখ্যলা বাহিনীর সদস্যরাও এই এলাকায় সবচেয়ে বেশী নজরদারির ব্যবস্থা রেখেছেন। এই এলাকার কোন রাস্তায় মোটরসাইকেলসহ অন্যান্য যানবাহন চলাচল করতে দেয়া হবেনা।

জেলা পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান সুনামগঞ্জ২৪.কম কে বলেন ‘ উৎসবের পরিবেশ আনন্দঘন রাখতেই আমরা সব ধরনের প্রস্তুতি হাতে নিয়েছি, যদি কেউ কোন বিশৃংখ্যলা সৃষ্টির চেষ্টা করে তাহলে সে যতো বড় ক্ষমতাশালী ব্যক্তিই হোক না কেনো তার বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমুলক ব্যবস্থা নিতে আমরা অপেক্ষা করবোনা,আর বখাটেদের জন্য আমরা অবশ্যই গোয়েন্দাদের দায়িত্ব দিয়ে দিয়েছি, কোন অপ্রীতিকর অবস্থার খবর পাওয়া মাত্রই ঘটনাস্থল পুলিশের নিয়ন্ত্রণে নিতে সময় লাগবেনা, আমরা তিন স্তরে এই নিরাপত্তা ব্যবস্থা সাজিয়েছি, সকলের সহযোগিতায় শারদীয় দূর্গা পূজা আমরা অনন্য এক উৎসবের মধ্য দিয়ে উদযাপন করতে চাই’।

সুনামগঞ্জ২৪.কম/ এমসি/ এমএআই

নিউজটি শেয়ার করুন

☑ বিজ্ঞাপন™

☑ বিজ্ঞাপন™

☑ বিজ্ঞাপন™

☑ বিজ্ঞাপন™