মঙ্গলবার, ১৭ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ৩১শে মার্চ, ২০২০ ইং

‘সিন্ডিকেটের কাছে জিম্মি’ ছাতক-দোয়ারা সীমান্তের পাথর ব্যবসায়ীদের একাংশ

খবরটি শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক ::

‘ছাতক লাইম স্টোন ইম্পোটার্স এন্ড সাপ্লাইয়ার গ্রুপ সিন্ডিকেট তৈরী করে দীর্ঘদিন ধরে দোয়ারাবাজার উপজেলার চেলা ও ছাতক উপজেলার ইছামতি নদীর দুই তীরবর্তী স্থানীয় বাসিন্দাদের ৬০ থেকে ৭০জন পাথর আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীকে জিম্মি করে রেখেছে’ বলে অভিযোগ করা হয়েছে। অভিযোগকারী ওইসব পাথর আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীরা বর্তমানে সরকারি শুল্ক জমা দিতে পারছেননা বলে আনুষ্ঠানিকভাবে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন। তারা একটি সভার মাধ্যমে এসব অভিযোগ তোলে ধরেন।

✅ আপনাদের ভালোবাসায়

‘শুল্কায়নের সাথে যুক্ত সিএন্ডএফ এজেন্টদেরকে ওই সিন্ডিকেটের সদস্যরা নানা ধরণের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করায় শুল্ক জমা না দিতে পারায় সরকারও হারাচ্ছে লাখ লাখ টাকার রাজস্ব’। এমন সব অভিযোগ করে সভায় বক্তব্যও দিয়েছেন অনেকে। বিগত ৭ বছর যাবৎ ওই লাইম স্টোন ইম্পোটার্স ‘সিন্ডিকেট’ স্থানীয়দের বাধাগ্রস্ত করছে বলেও অভিযোগ করাহয়। শনিবার এলাকাবাসী ও চেলা-ইছামতি ইম্পোটার্স এন্ড সাপ্লাইয়ার এসোসিয়েশন এর মতবিনিময় সভায় বক্তারা এসব অভিযোগ সামনে আনেন। বক্তারা বলেন , ‘ছাতক লাইম স্টোন ইম্পোটার্স এন্ড সাপ্লাইয়ার গ্রুপ সিন্ডিকেটের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছেন ছাতক-দোয়ারাবাজার দুই উপজেলা সীমান্তের চুনাপাথর আমদানি কারক ও ব্যবসায়ীরা। বক্তারা এর কবল থেকে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের রক্ষার দাবি জানিয়েছেন।

শনিবার(২১মার্চ) বিকেলে স্থানীয় ইছামতি বাজারে চেলা-ইছামতি ইম্পোটার্স এন্ড সাপ্লাইয়ার এসোসিয়েশনের কার্যালয়ে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা চমক আলীর সভাপতিত্বে ও কামরুজ্জামানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বেলাল আহমদ।
সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সভাপতি আবদুল হাই, ব্যবসায়ী মওলানা সিরাজুল হক, ইউপি সদস্য জয়নাল আবেদিন, সাবেক ইউপি সদস্য লাল মিয়া, নুরুল হক, ব্যবসায়ী আক্তার হোসেন, ফজল করিম, মিলন সিংহ প্রমুখ।

এ বিষয়ে ছাতক লাইম স্টোন ইম্পোটার্স এন্ড সাপ্লাইয়ার গ্রুপ এর সভাপতি সেলিম চৌধুরী সুনামগঞ্জ২৪.কম কে বলেন ‘ আমরাই একমাত্র রেজিস্ট্রার্ড সংগঠন, এর বাইরে কোন সংগঠনই নাই, কেউ যদি ব্যাবসা করতে চান তাহলে আমরা বাধা দেবো কেনো? আমরা তো আহবান জানাই যে আমাদের সংগঠনের সদস্য হয়ে ব্যাবসা করেন, সবকিছুরই তো একটা নিয়ম আছে, চেলা-ইছামতি ইম্পোটার্স এন্ড সাপ্লাইয়ার এসোসিয়েশন নামে তো কোন সংগঠনই নাই ব্যাবসায়িদের, একমাত্র রেজিস্টার্ড সংগঠন আমাদের টা, যারা সভা করেছেন তাদের কেউ ই তো ব্যাবসায়ি না’।

সুনামগঞ্জ২৪.কম/ এমএএমভি/ এমএআই

খবরটি শেয়ার করুন

✅ বিজ্ঞাপন

✅ বিজ্ঞাপন

✅ বিজ্ঞাপন