সোমবার, ২৯শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জুলাই, ২০২০ ইং

যেন অচেনা এক সুনামগঞ্জের চিত্র

খবরটি শেয়ার করুন:

দুপুর ১২টা। শহরের সবচেয়ে ব্যস্ততম সড়ক ট্রাফিক পয়েন্ট। ভ্রাম্যমান কয়েকটা ফল ও মাস্ক বিক্রেতারা ক্রেতা খুজতে ব্যস্ত। হাতে গুনা কয়েক জন ছুটছেন নিজের গন্তব্যের দিকে। স্থানীয় প্রশাসন থেকে দুজনকে একসাথে দেখলেই আলাদা ভাবে হাঁটার এবং বাইরে অযথা ঘুরাঘুরি না জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে। অনুরোধে কাজ না হলে কড়াকড়িভাবে ব্যবস্থাও নিচ্ছেন তারা। লোক সমাগম দেখলেই কি কাজে ঘর থেকে বের হয়েছেন অনেককেই জিঞ্জেস করছেন এমনটিও।

সুনামগঞ্জ২৪.কম এর এই প্রতিবেদক সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত শহরের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে প্রায় সব ধরনের দোকানপাট বন্ধ দেখতে পান। খোলা রয়েছে শুধু নিত্য প্রয়োজনীয় ও ঔষধের দোকানগুলো।

✅ আপনাদের ভালোবাসায়

শহরের ব্যস্ততম সড়কের মধ্যে আরেকটি পুরাতন বাসষ্টেশন, যেখানে প্রতিদিন সকাল থেকে রাত অব্দি ভীড় জমান ভিন্ন গন্তব্যের হাজারো যাত্রীরা, দুপর সময়টাতে যেখানে ভিন্ন যানবাহনের কারনে জ্যাম লেগে থাকে সেখানে স্ট্যান্ডগুলো আজ রয়েছে ফাঁকা।

শহরের মধ্য বাজার ও পশ্চিম বাজার এলাকার দৃশ্যটিও এক, নেই তেমন লোক সমাগম, বন্ধ রয়েছে প্রায় সকল ধরনের দোকানপাট। প্রশাসনের কয়েকজন লোক সচেতনায় কাজ করেছিলেন সে এলাকাটিতেও।

শহরের এমন নিস্তব্ধ চিত্র দেখে মনে হচ্ছে এ যেন এক অলিখিত কারফিউ, থমকে গেছে শহর!

প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে এক পথচারী জানান, চিরচেনা শহর কেমন যেন অচেনা হয়ে গেছে। গতকাল রাতে তিনি অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকেও মানুষের উপস্থিতি দেখতে পাননি। সন্ধ্যা নামতে না নামতেই গোটা এলাকা প্রায় জনমানবহীন হয়ে পড়ে।

উল্লেখ্য, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সংক্রমিত হওয়ার পর দেশে এখন পর্যন্ত ৩৯ জন আক্রান্ত এবং ৫ জন মারা গেছেন।

এসটিএফ/এসএম

খবরটি শেয়ার করুন:

✅ বিজ্ঞাপন

✅ বিজ্ঞাপন

✅ বিজ্ঞাপন