বুধবার, ১ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ অক্টোবর ২০১৯ ইং

আজ বিশ্ব ‘হাসি দিবস’

ইফতেখার সাজ্জাদ:: প্রাত্যহিক জীবনের নানামুখি টানাপোড়েন আর যন্ত্রণায় এখন মানুষ প্রায় যন্ত্রে পরিণত হয়েছে। নিয়ম আর রুটিনের বেড়াজালে আটকে পড়া জীবনে প্রাণভরে শ্বাস নেয়ারও ফুরসত নেই যেন। দম আটকে আসা এমন জীবন কাম্য না হলেও বাস্তবতার স্রোতে তাই মেনে নিতে হয়েছে। আর এমন এক অস্থির সময়ে প্রাণখোলা হাসিতো দুষ্প্রাপ্য। দুষ্প্রাপ্য কিন্তু জীবনের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয়

রান্নায় কম পেঁয়াজ ব্যবহারের কিছু কৌশল

সুনামগঞ্জ২৪ ডেস্কঃ হুট করেই বাজারে দ্বিগুণ হয়ে গিয়েছে পেঁয়াজের দাম, কিন্তু মধ্যবিত্তের বাজেট কি বেড়েছে? একদম না। অন্যদিকে অতিরিক্ত পেঁয়াজ খাওয়া অনেকের জন্যই মানা। যেমন, পেঁয়াজের সালফার অ্যাসিডিটি বাড়ায় ও বদহজম বয়ে আনে অনেকের জন্যই। তাহলে উপায়? পেঁয়াজ ছাড়া রান্না যে মজাও লাগে না! চলুন, আজ আমরা জানি এমন কিছু টিপস, যেগুলোর ব্যবহারে অল্প পেঁয়াজ

ছাত্রলীগের কর্মী থেকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী

দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় বারবার নিশ্চিত মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এসে বাংলার মানুষের মুখে হাসি ফুটানোর যে নিরন্তর প্রচেষ্টা আপনি বঙ্গবন্ধু তনয়া বলেই হয়তো সম্ভব। বাংলাদেশের উন্নয়নে সকল বাধাবিপত্তি পেড়িয়ে সম্ভব না কে সম্ভাবনায় রুপান্তর করায় একজন দেশরত্নকে আজকে বিশ্বমঞ্চে বিশ্বনেতায় পরিণত করেছে। বিশ্বানয়নের এই যুগে বিশ্বমঞ্চে বাংলাদেশকে যে অনন্য মর্যাদার আসন এনে দিয়েছেন তার একমাত্র

বন্ধ হোক প্রাথমিকে বৈষম্য:সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেড দেয়া হোক

আনিসুল হক লিখন বর্তমানে প্রাথমিক শিক্ষার বেশ উন্নতি হয়েছে দিন দিন আরো হবে। বিশেষ করে শিশুদের মিড ডে কার্য্যক্রম চালু, উপবৃত্তি সহ বিভিন্ন কার্য্য ক্রম। শিক্ষাব্যবস্থাও আগের চেয়ে অনেক উন্নত। কিন্তু ভিতরে ভিতরে একটি বিষযেই ফুঁসছে সহকারী শিক্ষকরা। প্রধান শিক্ষকদের একধাপ নীচের গ্রেড ১১ তম গ্রেডে বেতন দেয়া নিয়ে। প্রাথমিক শিক্ষার মূল সত্য কথাটি হলো

বুড়িস্থলে মানবসৃষ্ট পরিবেশ দূষণ রোধে কথা বলার এখনই সময়- অ্যাডভোকেট রাশেদ আহমদ

পরিবেশের দুষণের কবলে পরে আমাদের জীবন নাজেহাল হয়ে গেছে। খাদ্যে ভেজাল, বাদ্যে ভেজাল, বিশ্বাসে ভেজাল, নিঃশ্বাসে ভেজাল এর সাথে যুক্ত হয়েছে অতিমাত্রায় পরিবেশ দূষণ । পরিবেশ দূষণ বিভিন্নভাবে হয়ে থাকে। যেমন-পানি দূষণ, মাটি দূষণ, শব্দ দূষণ, খাদ্য দূষণ ও বায়ু দূষণ। সার কথা বলতে গেলে আমাদের চারিদিক আজ ভেজাল ও দূষণে পরিপূর্ণ। আমরা যতোই পরিবেশ

স্মৃতির রত্নায় ঈদ ভাবনা

রত্না। কোন মেয়ের নাম নয়। স্রোতস্বিনী মায়াবী জলে বাড়ীর পাশে বয়ে যাওয়া নদী। শৈশব, কৈশোরের সাথী আমার। এই ঈদে হারিয়ে যাওয়া আপন জনের ভিড়ে রত্নাকে ও খুব মনে পড়ল। তপ্ত দুপুরে যার জল শীতল পরশ দিতো। মায়াবী জল। রূপে টলমল। স্রোতে গাইতো গান। ঝাঁকে ঝাঁকে মাছ উপহার দিয়ে রসনায় দিতো সুস্বাদু ঘ্রাণ। বিনা মূল্যে পুষ্টি।

তোমার জন্য শব্দাবলী -আব্দুল মতিন

তোমার সুন্দর বিকেল হবো আমি। সূর্য হারিয়ে গেলে গল্প শুনাবো। গল্প শুনাবো শতরঙা ভালবাসার। জোনাকীদের নিয়ে সাজাবো অন্ধকারে সাড়া দেওয়া কামনার আলো। যদি বুকে জেগে উঠে ভয়, সাহস দিবো। অনেক না বলা কথা দিয়ে সাজাবো রাত্রির মালা। তুমি ঘুমাবে কোল জুড়ে। অনেক বছরের ক্লান্তি ফেলে। গাছের নীরবতায়,চাঁদের আলোয় পাহাড়া দিবো মানুষ খেকো শেয়াল, মানুষ খেকো

হাহাকারে ডুবে হতাশ কৃষকের শতস্বপ্ন -তানিমা

‘ক্ষুধার রাজ্যে পৃথিবী গদ্যময় ,পূর্ণিমার চাঁদ যেন ঝলসানো রুটি’ কবি সুকান্ত ভট্টাচার্য্য এই লাইন দুটির সৃষ্টি করেছিলেন ব্রিটিশ শাসনামলে । আজ আমরা বহুদূর পৌঁছে গেছি , আমাদের একটি স্বাধীন দেশ আছে। আমরা এখন পুঁজিবাদে বিশ্বাসী , আমাদের আর খাদ্য নিয়ে ভাবতে হয় না । বহুজাতিক কোম্পানির হাইব্রিড বীজের কল্যাণে এখন ফসল উদ্বৃত্ত থাকে। তাতে কৃষকের

যোগ্য নেতৃত্বের কারনে বদলে যাওয়া অন্য এক বাংলাদেশ

বাংলাদেশের পাঠকদের কেউ কেউ পারভেজ হুদাবয়ের নাম শুনে থাকতে পারেন। তিনি আন্তর্জাতিক পর্যায়ে স্বনামখ্যাত পাকিস্তানের একজন পরমাণুবিজ্ঞানী, গবেষক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক। চিন্তাধারায় প্রগতিশীল এবং পাকিস্তানের যেসব সুধীজন নির্মোহভাবে পরিস্থিতি ও ঘটনার বিশ্লেষণ করে থাকেন, তিনি তাঁদের অন্যতম। তাঁর বিশ্লেষণাত্মক কলাম তাঁর নিজ দেশে ও দেশের বাইরে বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় নিয়মিত প্রকাশিত হয়। পারভেজ হুদাবয় পাকিস্তানের ধর্মান্ধ

কৃষকের মন পুড়েছে… নগর পুড়লে দেবালয় এড়ায় না

টিভিতে একটা বিজ্ঞাপনের কথা বেশ কিছুদিন যাবৎ মনের ভিতরে দোলা খাচ্ছে। “বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, ভাবতে ভালোই লাগে।” বিজ্ঞাপনের এই ট্যাগলাইনটির কথা অনেকের হয়তো মনে আছে। বিজ্ঞাপন যেনো বাস্তবতায় রূপ নিলো। ‘তলাবিহীন ঝুড়ি’, ‘দুর্ভিক্ষপীড়িত দেশ’- এসব অপবাদের তকমা থেকে বাংলাদেশ এখন এশিয়ার উদীয়মান বাঘ। হালুম… অর্থমন্ত্রীর ভাষায় বাংলাদেশ এখন কানাডা ও থাইল্যান্ডের

☑ বিজ্ঞাপন™

☑ বিজ্ঞাপন™

☑ বিজ্ঞাপন™

☑ বিজ্ঞাপন™