সোমবার, ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১০ই আগস্ট, ২০২০ ইং

পুলিশের অ্যাকশন জরুরী: একটা শহর মৃত্যুপূরী হওয়ার চেয়ে কারাগার হওয়াও শ্রেয়

চলমান করোনা পরিস্থিতিতে সরকারের নির্দেশনার প্রতি খুব একটা গুরুত্ব দিচ্ছেন না এমন মানুষের সংখ্যা কম নয়। স্বভাবগত কারণে বাঙ্গালীদের একটা অংশ এরকমই। আর তাদের প্রতি কঠোর আইনের প্রয়োগ এই মুহুর্তে অত্যন্ত জরুরী হয়ে পরেছে। যেহেতু সুনামগঞ্জে রোববার ও সোমবার ২জন করোনায় আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন এবং সর্বশেষ সোমবার শনাক্ত হওয়া রোগী জেলা সদরের বাসিন্দা তাই

প্রধানমন্ত্রীর খাদ্য সহায়তা একই এলাকায় না দিয়ে প্রত্যন্ত গ্রামে শ্রমজীবিদের ঘরে পৌছে দিন

দেশের সকল দু:সময়ে সরকার প্রধান হিসেবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কণ্যা শেখ হাসিনা যথাযথ সিন্ধান্ত গ্রহণের মধ্য দিয়ে সংকট মোকাবেলা করে নজির স্থাপন করে চলেছেন। অতিতে বিশ্বের প্রায় সকল উন্নত দেশ যখন মন্দার প্রভাবে মারাত্নকভাবে অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে তখনও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর কিছু গুরুত্বপুর্ণ সিদ্ধান্ত বাংলাদেশকে এই ক্ষতির বাইরে রেখেছে। চলমান করোনা পরিস্থিতিতে মারাত্বক ক্ষতির সম্মুক্ষিন

দিনমজুর-শ্রমিকদের প্রতি অমানবিকতা নয়, তাদের খাদ্য নিশ্চিত করা আবশ্যক

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে দেশের সকল অঞ্চলের মতো সুনামগঞ্জেও সকল উপজেলায় নাগরিকদের ঘরে থাকতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। সরকারের এই সিদ্ধান্ত অনুযায়ি সকল শপিং সেন্টার, সব ধরনের মার্কেট কেবলমাত্র ঔষধ ও ভোগ্যপণ্যের দোকানছাড়া সকল দোকান বন্ধ রাখতে কঠোর অবস্থানে রয়েছে আইন শৃংখ্যলা রক্ষাকারি বাহীনী ও জেলা প্রশাসন। জেলার বেশ কিছু এলাকায় পুলিশের অ্যাকশন পরিলক্ষিত হয়েছে। সামাজিক

মাঠপর্যায়ে কাজ করা কর্মীদের সবার আগে পিপিই সরবরাহ করতে হবে

দেশের সাধারণ মানুষের কথাই সবার আগে ভাবতে হবে সরকারকে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে যেসব কর্মযজ্ঞ নিয়ে কথা বলাহচ্ছে তাতে করোনা ভাইরাসের মোকাবেলায় ধীরগতিতে অগ্রসর হওয়ার বিষয়টি প্রমাণিত। এখনো দেশের সকল হাসপাতালে পিপিই (পারসোনাল প্রটেকশন ইক্যুইপমেন্ট)সরবরাহ করা খুব একজা জরুরী মনে করছেননা মন্ত্রণালয়ের কিছু কর্তা ব্যাক্তি। খোদ মন্ত্রীও পিপিই সরবরাহের বিষয়ে তেমন জোড়ালো পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশ দেয়ার

জনসমাগম ও অসচেতনদের বিচরন বন্ধ করতে আইন প্রয়োগ জরুরী

নোভেল করোনা ভাইরাসকে বাংলাদেশে প্রথম দিকে কেউই ততোটা গুরুত্ব দিয়ে ভাবেননি বরং হাস্যরস নিয়েই কথা বলেছেন দেশের দায়িত্বশীল ব্যাক্তিরাও। অনেকে আবার এমন সব বক্তব্য দিয়েছেন যা এখনো নাগরিকদের কাছে বহুলভাবে সমালোচিত হওয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচিত হচ্ছে। এসব বক্তব্য দিয়ে কর্তারা হয়েছেন নাগরিকদের কাছে হাসির খোরাক। এই মহামারি নিয়ে কতিপয়রা সঙ্গীত রচনা করেও আনন্দ নিয়েছেন

বাজার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রশাসনকে আরও কঠোর হতে হবে

সম্প্রতি করোনা ভাইরাসের আলোচনা সর্বত্রই। এই ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে করণীয় বিষয়ে সরকার ও প্রশাসন দিনরাত প্রচারণা দেয়ার পাশাপাশি দেশের জনগনকে সতর্ক করছে। চিকিৎসকেরাও দুঃশ্চিন্তায় সময় পার করছেন। ইতিমধ্যেই দেশে ১৭জন আক্রান্ত হয়েছেন এই ভাইরাসে। গত কিছুদিন ধরেই আইইডিসিআর করোণা মোকাবেলায় ব্যাপক প্রস্তুতির কথা জানালেও বাস্তবঅর্থে করোণা আক্রান্ত দেশগুলো থেকে অবাধে প্রবাসীদের দেশে ঢুকতে দেয়া হয়েছে।

সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে লাশ বাণিজ্য বন্ধ করতে হবে

হাওর বেষ্টিত জেলা সুনামগঞ্জের ১১ উপজেলার প্রায় ২৪ লক্ষ মানুষের উন্নত চিকিৎসাসেবা প্রাপ্তির ভরসা ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল। ১৯৮৪ সালে স্থাপিত হাসপাতাল ভবনের সাথে নির্মাণ করা হয়েছিলো একটি লাশ কাটা ঘর বা মর্গ। গত ১৪মার্চ(শনিবার) সদর হাসপাতালের এই মর্গে লাশ বাণিজ্য বিষয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয় সুনামগঞ্জ২৪.কম এ। “সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গ: “টাকা ছাড়া

ছাত্র লীগের কর্মীদের সতর্ক থাকা জরুরী

সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের কমিটির অগ্রভাগে থাকা নেতাদের নানা কর্মকান্ড ও আভ্যন্তরিন কোন্দল বছরজুড়েই সংগঠনটিকে আলোচনায় রাখে। এটি আগের কমিটিগুলোতেও ছিলো। মুক্তিযুদ্ধে জাতির অন্যতম শক্তি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ঐতিহ্যবাহী ও এশিয়ার সবচেয়ে বড় ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কর্মীদের অধিকাংশই প্রকৃত ছাত্র হওয়ায় এবং সংগঠনের গঠনতন্ত্রে উল্লেখিত বিষয়গুলো মেনে নির্দৃষ্ট সময়ের মধ্যে সম্মেলন আয়োজন ও অপকর্মে জড়িয়ে

অন্তর গহীনে আছো নিরবে, শ্রদ্ধা আর ভালোবাসার নেতা জগলুল

যে সময়ে অর্থের বিনিময়ে ভালোবাসা পাওয়ার ব্যাপক আয়োজনের ভীড় ঠেলে চলতে হচ্ছে চারদিকে। সেখানে ধমক দেয়ার মতো নেতার অভাব প্রতিটা কর্মীই অনুভব করে চলেছেন প্রতিনিয়ত। কেননা অধিকাংশ নেতাদের নিজেদের জায়গা ই তো ঠিক নেই। ভয় আর কেবল ভয় তাদের। বুকে হাত দিয়ে নিজেকে শতভাগ সৎ বলার সাহস কতোজনের আছে? এই শহরে রাজনৈতিক সংগঠনের অভাব নেই।

সরকারি কলেজের ৭৫বছর উদযাপনে বর্তমান শিক্ষার্থীদের দাবির বিষয়টিও ভাবতে হবে

সুনামগঞ্জ জেলার শিক্ষাক্ষেত্রে অন্যতম ভুমিকায় থাকা বিদ্যাপীঠ সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজ। ১৯৪৪ সালে প্রতিষ্ঠার পর জেলাবাসীর আশা-ভরসা, উচ্চ শিক্ষার অবলম্বন এই প্রতিষ্ঠান। ইতিহাস বলছে, তৎকালীন আসামের প্রথম বেসরকারি বিজ্ঞান কলেজ এটি। আসাম বেঙ্গল সিমেন্ট ফ্যাক্টরীর সহায়তায় ১৯৪৪ সালে এই কলেজে আই.এসসি কোর্স চালু হয়েছিলো। পরবর্তীতে বিজ্ঞান শিক্ষায় এর সুনাম ছড়িয়ে পড়েছিলো সারা দেশে। দেশ বরেণ্য খ্যাতিমান

✅ বিজ্ঞাপন

✅ বিজ্ঞাপন

✅ বিজ্ঞাপন