মঙ্গলবার, ১লা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

একুশ – ওয়াহিদুজজামান শিকদার (সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ, সুনামগঞ্জ)

সাত চল্লিশে বীজ বপন বাহান্নতে চারা
ছেষট্টি তে বঙ্গবন্ধুর ছয়দফারই ধারা।
উনসত্তুরের অভ্যুত্থানে পাকি দিশেহারা
সত্তুরেরই নির্বাচনে হারলো যে গো-হারা।

একাত্তরের সাতই মার্চের অগ্নি ঝরা দিন
আজও জাতি ভোলেনি তোমায় মুজিব তোমার ঋণ।
একুশ ছিলো স্বাধীনতার একাত্তরের যুদ্ধ
একুশ ছিলো বীর বাঙালীর অস্ত্র ধরা সূর্য।

একুশ ছিলো প্রতিবাদ আর অস্তিত্বের ই লড়াই
একুশ ছিলো বাংলা মায়ের অহংকার আর বড়াই।
একুশ ছিলো চেতনা আর গণ অধিকার
একুশ ছিলো ব’লে ই আমার আজকের স্বাধীকার।

একুশ আমায় বলে গেলো তোমার অধিকার
পারবে না কেউ নিতে কেড়ে থাকতে ঐক্য বল্।
বাংলা ভাষা কেড়ে নিতে যেই না পাকিস্তান
আসলো তেড়ে বাংলাদেশে গেলো গোরস্থান।

দেশ জনতা উঠলো রুশে ক্ষ্যাপলো পুরো দেশ
বরকত সালাম রফিক জব্বার করলো তাদের শেষ।
ভাষার জন্য সারা বিশ্বে এমন ইতিহাস
গড়ে নিতো পারবে না কেউ এযে অবিশ্বাস।

বীর বাঙালীর রক্ত আনলো আনলো স্বাধীনতা
পালিয়ে গেলো পাক বাহিনী ফিরলো জাতির পিতা।
আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা বাংলা হলো আজ
অহংকার আর গৌরব বাংলার পাকিদের নেই লাজ।

বাহাহ্নতে দামাল ছেলে ভাষার স্বাধীনতা
আনলো কেড়ে রক্ত দিয়ে রক্ত যে নয় বৃথা।
সাত চল্লিশের পথ ধরে হাটলো বাংলাদেশ
হারলো শেষে পাক বাহিনী জিতলো বাংলাদেশ।

একুশ মানে অধিকার আর একুশ বাংলাদেশ
একুশ আমার মাতৃভাষা বাংলা ভাষার দেশ।
একুশ আমায় ভাষা দিলো একুশ দিলো আশা
একুশ ছাড়া স্বাধীনতার ছিলো না তো আশা।….

[কবি- ওয়াহিদুজ্জামান শিকদার, সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ, সুনামগঞ্জ]

সুনামগঞ্জ২৪.কম/ লেখালেখি/ এমএআই

error: Content is protected !!